Toptube Video Search Engine



Title:রামকৃষ্ণ মঠে কুমারী পূজা | মহা অষ্টমী | #travelvlog #festival #durgapuja2022
Duration:30:34
Viewed:34,536
Published:03-10-2022
Source:Youtube

||কুমারী পূজা|| বৃহদ্ধর্মপুরাণে রামের জন্য ব্রহ্মার দূর্গাপূজার বিস্তারিত বর্ণনা পাওয়া যায়। তখন শরৎকাল, দক্ষিণায়ণ। দেবতাদের নিদ্রার সময়। তাই, ব্রহ্মা স্তব করে দেবীকে জাগরিত করলেন। দেবী তখন কুমারীর বেশে এসে ব্রহ্মাকে বিল্ববৃক্ষমূলে দুর্গার বোধন করতে বললেন। দেবতারা মর্ত্যে এসে দেখলেন, এক দুর্গম স্থানে একটি বেলগাছের শাখায় সবুজ পাতার রাশির মধ্যে ঘুমিয়ে রয়েছে একটি তপ্তকাঞ্চন বর্ণা বালিকা। ব্রহ্মা বুঝলেন, এই বালিকাই জগজ্জননী দূর্গা। তিনি বোধন-স্তবে তাঁকে জাগরিত করলেন। ব্রহ্মার স্তবে জাগরিতা দেবী বালিকামূর্তি ত্যাগ করে চণ্ডিকামূর্তি ধারন করলেন। তন্ত্রসার মতে, "১ থেকে ১৬ বছর পর্যন্ত বালিকারা কুমারী পূজার উপযুক্ত। তাদের অবশ্যই ঋতুমতি হওয়া চলবে না। মেরুতন্ত্রে বলা হয়েছে, সর্বকামনা সিদ্ধির জন্য ব্রাহ্মণ কন্যা, যশোলাভের জন্য ক্ষত্রিয় কন্যা, ধনলাভের জন্য বৈশ্য কন্যা ও পুত্র লাভের জন্য শূদ্রকূল জাত কন্যা কুমারী পূজার জন্য যোগ্য। গুণ ও কর্ম অনুসারেই এই জাতি বা বর্ণ নির্ধারিত হয়। সেইজন্যই প্রচলিত শাস্ত্র অনুসারে, বিভিন্ন মিশন ও মন্দিরগুলোতে সর্ব মঙ্গলের জন্য ব্রাহ্মণ কন্যাকেই দেবী জ্ঞানে পূজা করা হয়।। শাস্ত্রমতে, কুমারী পূজার উদ্ভব হয় বানাসুর বধ করার মধ্য দিয়ে। গল্পে বর্ণিত রয়েছে, বানাসুর এক সময় স্বর্গ-মর্ত্য অধিকার করায় বাকি বিপন্ন দেবগণ মহাকালীর শরণাপন্ন হন। সে সকল দেবগণের আবেদনে সাড়া দিয়ে দেবী পুনর্জন্মে কুমারীরূপে বানাসুরকে বধ করেন। এরপর থেকেই মর্ত্যে কুমারী পূজার প্রচলন শুরু হয়। তবে, পুরোহিতদর্পণ প্রভৃতি ধর্মীয় গ্রন্থের বর্ণনানুসারে, কুমারী পূজায় কোন জাতি, ধর্ম বা বর্ণভেদ নেই। দেবীজ্ঞানে যে-কোন কুমারীই পূজনীয়া। তবে সাধারণত ব্রাহ্মণ কুমারী কন্যার পূজাই সর্বত্র প্রচলিত হলেও কোথাও বলা নেই যে ব্রাহ্মণকন্যাই কেবল পূজ্যা। এক্ষেত্রে এক থেকে ষোলো বছর বয়সী যে কোনো কুমারী মেয়ের পূজা করা যায়। বয়সের ক্রমানুসারে পূজাকালে এই সকল কুমারীদের বিভিন্ন নামে অভিহিত করা হয়। এক বছরের কন্যা - সন্ধ্যা দুই বছরের কন্যা - সরস্বতী তিন বছরের কন্যা - ত্রিধামূর্তি চার বছরের কন্যা - কালীকা পাঁচ বছরের কন্যা - সুভগা ছয় বছরের কন্যা - উমা সাত বছরের কন্যা - মালিনী আট বছরের কন্যা - কুব্জিকা নয় বছরের কন্যা - কালসন্দর্ভা দশ বছরের কন্যা - অপরাজিতা এগারো বছরের কন্যা - রূদ্রাণী বারো বছরের কন্যা - ভৈরবী তেরো বছরের কন্যা - মহালক্ষ্মী চৌদ্দ বছরের কন্যা - পীঠনাযি়কা পনেরো বছরের কন্যা - ক্ষেত্রজ্ঞা ষোলো বছরের কন্যা - অন্নদা বা অম্বিকা সকল নারীর মধ্যই বিরাজিত রয়েছে দেবীশক্তি । তবে কুমারী রূপেই মা দুর্গা বিশেষভাবে প্রকটিত হয়েছিলেন। তাই, কুমারী রূপে নারীকে দেবীজ্ঞানে সন্মান জানানোর একটি বাস্তব উদাহরণ হচ্ছে কুমারী পূজা । ষোড়শোপচারে কুমারী পূজা মাতৃরূপে ইশ্বরেরই একটি আরাধনা। 'ষোড়শোপচার' কথাটির অর্থ সম্পাদনা করা, (ষোড়শ + উপচার)। পূজার ১৬টি দ্রব্যকে একসাথে 'ষোড়শোপচার' বলা হয়। আসন, স্বাগত, পাদ্য, অর্ঘ্য, আচমনীয়, স্থানীয়, বসন, ভূষণ, গন্ধ, পুষ্প, ধূপ, দীপ, মধুপর্ক, তাম্বুল, তর্পণ ও নতি। রামকৃষ্ণ মঠ, ঘাটশিলায় ষোড়শোপাচারে কুমারী পূজা



SHARE TO YOUR FRIENDS


Download Server 1


DOWNLOAD MP4

Download Server 2


DOWNLOAD MP4

Alternative Download :